মাত্র একবার জ্বালানি লোড করলেই ১৮ মাস পর্যন্ত বিদ্যুৎ উৎপাদন করা যাবে

38

দেশের প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নির্মাণ কাজ চলছে পাবনার রুপপুরে। দেশের মেগা প্রকল্পগুলোর মধ্যে অন্যতম প্রকল্প হল এটি।

রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে ব্যবহার করা হবে রাশিয়ার জেনারেশন থ্রি-প্লাসের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন দুটি ভিভিইআর-১২০০ প্রেসারাইজড ওয়াটার রিয়্যাক্টর।

যার প্রত্যেকটির উৎপাদন ক্ষমতা ১২০০ মেগাওয়াট। যেখানে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করা হবে ইউরেনিয়াম অক্সাইড।

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য ভিভিইআর-১২০০ পারমাণবিক চুল্লিতে একবার জ্বালানি লোড করলে, সেখানে আগামী ১৮ মাস আর কোনো জ্বালানি দিতে হবে না! মানে একবার জ্বালানি লোড করার পর সেখান থেকে আগামী ১৮ মাস পর্যন্ত বিদ্যুৎ উৎপাদন করা যাবে।

নিউক্লিয়ার এনার্জি অন্যান্য এনার্জি থেকে প্রায় ১০০০০ গুন অধিক শক্তিশালী যেখানে তাপ কিংবা গ্যাসভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলোতে প্রতিনিয়ত কয়লা, তেল, ডিজেল কিংবা গ্যাস সরবরাহ করতে হয়, কিছুক্ষণের জন্য যদি জ্বালানি সরবরাহ বন্ধ থাকে, তাহলে সেসব বিদ্যুৎ কেন্দ্র বন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র এদের থেকে টোটালি ডিফারেন্ট।

এখানে জ্বালানির জন্য বারবার ঝামেলা পোহাতে হয় না। একবার জ্বালানি লোড করলে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি ১ বছর ৬ মাস পর্যন্ত চলতে পারবে।

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সার্ভিস লাইফ ৬০ বছর। এই সময়ের মধ্যে হয়তো মাত্র ৪০ বার জ্বালানি লোড (রিফুয়েলিং) করতে হবে। তাহলেই রুপপুর থেকে আগামী ৬০ বছর পর্যন্ত নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ উৎপাদন করা যাবে।

(ডিফ্রেস৩৬০)