পদ্মা সেতুর নির্মাণের জন্য আরো ৬০০ কোটি টাকা চায় চীনা প্রতিষ্ঠান

38
বন্যা,মহামারী সহ নানা কারনে পদ্মা সেতুর নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ সরকারের নিকট হতে ৬০০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দাবী করেছে।
এমতাবস্থায় কাজ শ্লথ হওয়া,পিছিয়ে যাওয়া এমনকি আদালত কিংবা আন্তর্জাতিক আদালতে যাওয়ার মত কথাও শোনা যাচ্ছে।
চায়না মেজর ব্রিকস কোম্পানী এখনো বেশ কিছু আপত্তিপত্র জানিয়ে আসছে আর তাদের দিনপ্রতি ৪১ লক্ষ টাকা দাবী করছে।
অবশ্য দিনপ্রতি ৩৯ লক্ষ টাকা হিসেবে প্রায় ৩০০ কোটি টাকার দাবীপত্র মিটিয়েছে বাংলাদেশ।
তবে ক্ষতি অতিরিক্ত দেখিয়ে কিংবা কাজ আটকিয়ে ক্ষতিপূরণ আদায় চীনের জন্য নতুন কিছু নয়।চট্টগ্রাম-ঢাকা ফোরলেন হাইওয়ে নির্মাণে গড়িমসি কিংবা সিলেট-ঢাকা সড়ক নির্মাণে ঘুষ দেবার মত অভিযোগ রয়েছে চীনা রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত এসব প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে।
সে হিসেবে জাপানিজ কোম্পানীগুলো প্রতিটি কাজেই দায়বদ্ধতা দেখিয়েছে।এমনকি কাজের টাইমলিমিটের আগেই কাজ সম্পন্ন করা,অর্থ ফেরত দেবার মত সততাও দেখিয়েছে তারা।
অবশ্য ৩৪ তম স্পান বসাবার মাধ্যমে এখনই ৫.১ কিমি সেতু দৃশ্যমান হয়েছে।
চীনের সাথে বাংলাদেশ পদ্মা সেতু নির্মাণের সকল চুক্তি মোতাবেক কাজ করছে।পদ্মা সেতুর মুল কাজ ও এখন অনেকটস এগিয়ে এসেছে।
কাজ শেষের পর চীনা কোম্পানীগুলোকে মেগাপ্রকল্পের কাজ বুঝিয়ে দেবার পূর্বে তাদের চুক্তির শর্তগুলো আরো স্পষ্ট করা এবং তা জোরদারের উপর মনোনিবেশ করা এখন সময়ের দাবী।