মালদ্বীপে সমরাস্ত্র রপ্তানির আকাঙ্খা বাংলাদেশের

62

মালদ্বীপের ডিফেন্স মিনিস্টার মারিয়া দিদি’র সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন সে দেশে নিযুক্ত বাংলাদেশী রাষ্ট্রদূত রিয়ার এডমিরাল নাজমুল হাসান।

বৈঠকে মালদ্বীপের সাথে চলমান সামরিক সম্পর্ক আরো বেগবান করতে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়।

উল্লেখ্য দ্বীপ রাষ্ট্র মালদ্বীপ এই অঞলে সামরিক দিক থেকে সবচেয়ে কম শক্তিধর দেশ। সে দেশের অভ্যন্তরীণ রাজনীতি বা সমরনীতিতে ভারতের প্রভাব লক্ষণীয়। তবে ধীরে ধীরে বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশের সাথে সামরিক সম্পর্ক গড়ে তুলছে।

অপেক্ষাকৃত দুর্বল দেশ মালদ্বীপকে ২০১১ সালে সৈন্য পরিবহনের জন্য উপহার স্বরুপ BMTF এ তৈরীকৃত “অরুনিমা বলীয়ান ” প্রদান করে।

এছাড়াও তাদের দেশের সামরিক কর্মকর্তারাও এদেশে প্রশিক্ষণের জন্য আসেন। ২০১৫ সালে বাংলাদেশ সফরে আসা সেদেশের ন্যাশনাল ডিফেন্স ফোর্সের প্রধান মেজর জেনারেল আহমেদ সিয়াম মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎকালে বাংলাদেশ হতে খুলনা শিপইয়ার্ডের তৈরীকৃত অফশোর পেট্রোল বোট বা OPV ক্রয় করার আগ্রহও প্রকাশ করেন।

উল্লেখ্য বাংলাদেশের সমরাস্ত্র রপ্তানির আকাঙ্খা দীর্ঘদিনের। যদি বাংলাদেশ সমরাস্ত্র রপ্তানি করতে চায় তাহলে সামরিক দিক থেকে অপেক্ষাকৃত দুর্বল দেশ গুলোই হতে পারে আমাদের অস্ত্র রপ্তানির প্রধান বাজার।