মায়ের স্বপ্ন: ক্রিকেটপ্রেমি ছেলে একদিন টাইগারদের সঙ্গে খেলবে

78

পাঞ্জাবি-পায়জামা পরা কিশোরের বোলিংয়ে ব্যাট করছেন বোরকাপরা এক নারী। ওই নারীকে আউট করতে পেরে উল্লাসে আত্মহারা সেই কিশোর। কিশোরের আনন্দে সঙ্গী হতে তাকে জড়িয়ে ধরে আদর করছেন বোরকাপরা সেই নারী।

গত শুক্রবার থেকেই কিশোর-নারীর এই ক্রিকেট খেলার বেশ কয়েকটি ছবি অসংখ্য নেটিজেনদের টাইমলাইনে ঘুরপাক খাচ্ছে।

বিভিন্ন গ্রুপেও শেয়ার হয়েছে সেসব ছবি। তাদের এমন ক্রিকেট খেলার দৃশ্যে মুগ্ধ নেটিজেনরা। ক্রিকেটপ্রেমিরা তাদের পরিচয় জানতে চেয়েছেন।

জানা গেছে, সম্পর্কে তারা মা ও ছেলে। শুক্রবার বিকেলে যখন বাংলাদেশ পুলিশ ও আনসার মধ্যকার জাতীয় বেসবল চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল ম্যাচ চলছিল তখন রাজধানীর পল্টন ময়দানে ক্রিকেট খেলছিলেন মা-ছেলে।

মা ও ছেলের ৩০ মিনিটের ক্রিকেট প্রতিযোগিতার ছবি ক্যামেরাবন্দি করেন ফটো সাংবাদিকরা। সোশ্যাল মিডিয়ার কল্যাণে মুহূর্তেই তা বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বোরকাপরা মায়ের নাম ঝর্ণা আক্তার চিনি। তার গ্রামের বাড়ি মুন্সিগঞ্জে। এক সময়ে দেশের সফল অ্যাথলেট ছিলেন। ঝর্ণার পুরো পরিবারই খেলাপাগল। তার ছোট ভাই জাতীয় ফুটবল দলে স্ট্রাইকার রোকনুজ্জামান কাঞ্চন।

পরিবারের অগ্রজদের মতো খেলায় আগ্রহ ঝর্ণার ১১ বছরের ছেলে শেখ ইয়ামিনেরও। ফুটবল নয়, সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা ক্রিকেটের প্রতি খুব ঝোঁক ইয়ামিনের। ইয়ামিন মাদ্রাসায় চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ছে।

এর ফাঁকে সুযোগ পেলেই ব্যাট-বল নিয়ে মাঠে নেমে পড়ে। তাই ক্রিকেটকে ছেলে কতটুকু আয়ত্বে এসেছে তা পরখ করতে পর্দার আড়ালে মাঠে নেমেছিলেন ঝর্ণা।

গণমাধ্যম কর্মীদের ঝর্ণা আক্তার বলেন, আমি এক সময় খেলোয়াড় ছিলাম। ডিস্ট্রিক্ট চ্যাম্পিয়ন হয়েছি। বর্শা নিক্ষেপ, চাকতি, গোলক নিক্ষেপ, লং-জাম্প, ৫০০ মিটার দৌড়, ২০০ মিটার দৌড়ে নিয়মিতই অংশ নিতাম।

আমার ভাই জাতীয় পর্যায়ের খেলোয়াড়। ইয়ামিন ক্রিকেট খুব পছন্দ করে। ও বড় হয়ে ক্রিকেটার হতে চায়। তাই আমি কাজী নজরুল একাডেমিতে ওকে ভর্তি করিয়েছি।

এখন আমারও স্বপ্ন ইয়ামিন একদিন টাইগারদের সঙ্গে খেলবে। আপাতত তাকে বিকেএসপিতে পৌঁছানোর স্বপ্ন দেখছি।